Main Menu

সরকারের ধারাবাহিকতায় উন্নয়ন দৃশ্যমান : প্রধানমন্ত্রী

চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের চিকিৎসার দায়িত্ব গ্রহণ

বিবিসিএকাত্তর ডেস্কঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমরা দেশের উন্নয়নে নিরন্তর চেষ্টা করে যাচ্ছি। আর সরকারের ধারবাহিকতা বজায় আছে বলেই উন্নয়ন দৃশ্যমান। মঙ্গলবার ঢাকায় নবনিযুক্ত ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত উইনি এস্ট্রাপ পিটারসেন প্রধানমন্ত্রীর তেজগাঁওস্থ কার্যালয়ে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় নতুন রাষ্ট্রদূত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাংলাদেশ থেকে ফেরত নেয়ার জন্য মিয়ানমারের প্রতি আহবান জানান।

সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে দুই দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনাকালে প্রধানমন্ত্রী তার সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, সরকারের ধারবাহিকতা বজায় থাকায় এখন উন্নয়ন দৃশ্যমান হচ্ছে।

আমরা জনগণের খাদ্য নিরাপত্তাসহ মৌলিক চাহিদাগুলো নিশ্চিত করতে নিরন্তর চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি। দেশের গণতন্ত্র প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা ভবিষ্যতে দেশে গণতন্ত্রের বিকাশ চাই। এ সময় তিনি তার সরকারের আমলে কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং নারীর ক্ষমতায়নের উল্লেখযোগ্য সাফল্যগুলো তুলে ধরেন।

প্রধানমন্ত্রী রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাংলাদেশ থেকে ফেরত নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে পুনরায় গুরুত্ব আরোপ করেন। রোহিঙ্গা পুনর্বাসনে সরকারের পদক্ষেপগুলোর কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, রোহিঙ্গাদের অস্থায়ী আবাসনের জন্য আমরা নোয়াখালীতে একটি চরের উন্নয়ন করছি।

ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের চমকপ্রদ আর্থসামাজিক উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, আপনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন বিশেষ করে নারীর ক্ষমতায়নের বিষয়ে জানতে পেরে আনন্দিত।

রাষ্ট্রদূত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ফেরত নিয়ে যাওয়ার জন্য মিয়ানমারের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, মিয়ানমারের উচিত তাদের রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাংলাদেশ থেকে ফেরত নিয়ে যাওয়া।

চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রধানমন্ত্রী : প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা আমজাদ হোসেন গুরুতর অসুস্থ হয়ে রাজধানীর ইমপালস হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বর্তমানে তিনি আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন।

এই পরিচালকের চিকিৎসার সব দায়িত্ব নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ তথ্য জানিয়েছেন, আমজাদ হোসেনের ছোট ছেলে সোহেল আরমান। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছি। তিনি বাবার চিকিৎসার সব দায়িত্ব নিয়েছেন। যদি বিদেশে নিয়ে যাওয়া লাগে সেটাও তিনি ব্যবস্থা করবেন বলে জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী বাবার বর্তমান শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন।

রোববার রাজধানীর আদাবরের নিজ বাসায় আমজাদ হোসেন ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। প্রথমে তাকে রাজধানীর আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ইমপালস হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানেই তাকে আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আমজাদ হোসেনের অবস্থা খুবই গুরুতর। তিনি যে ধরনের স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়েছেন সেখান থেকে ফিরে আসার সম্ভাবনা কম। তার পরও তারা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছেন বলে জানিয়েছেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*