Main Menu

তাড়াইলে স্ত্রী’র স্বীকৃতির দাবীতে প্রেমিকের শশুর বাড়ীতে প্রমিকার অনশন

মুকুট দাস মধু, তাড়াইল (কিশোরগঞ্জ): কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে স্ত্রী’র স্বীকৃতির দাবীতে প্রেমিকের শশুর বাড়ীতে প্রমিকা অবস্থান করে প্রতিকী অনশন পালন করেছে।

জানা যায়, উপজেলার রাউতি ইউনিয়নের সুরঙ্গল গ্রামের আজিমউদ্দিনের ছেলে সিঙ্গাপুর প্রবাসী রাকিব হাসান রনি’র(৩০) সাথে পার্শবর্তী নেত্রকোণা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার পেমই গ্রামের মৃত গোলাম মোস্তফার মেয়ে আইরিন আক্তার(২৪)এর প্রেম চলছিলো দীর্ঘ ৪ বছর যাবত।

বিগত ২০ দিন আগে আইরিন’কে না জানিয়ে পরিবারের পছন্দমত একই ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রামের হাইছ উদ্দিনের মেয়ে আঁখি আক্তার’কে বিয়ে করেন রনি।বিয়ের পর থেকেই আইরিনের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় রনি।

আইরিন রনির বিয়ের কথা গতকাল বৃহস্পতিবার জানতে পেরে আজ শুক্রবার (১২জুলাই) সকাল ৮ টায় নিজ প্রেমিকের সাথে দেখা করতে রনি’র শশুর বাড়ীতে এসে অনশনে বসেন।আইরিন’কে নিজের শশুর বাড়ীতে দেখে রনি পালিয়ে যায়।আইরিন রনি’র শশুর বাড়ীর একটি রুমে ডুকে দড়জা আটকে দিয়ে আত্যহত্যার হুমকি দিলে স্থানীয় জনৈক ব্যাক্তি তাড়াইল থানায় খবর দেয়।খবর পেয়ে এসআই রাজীব সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আইরিনের সাথে কথা বললে দড়জা খুলে আইরিন।

থানায় মামলা না হওয়ার কারনে উক্ত রাউতি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শরীফ উদ্দিন জুয়েলের জিম্মায় রেখে আসেন এসআই রাজীব।

আইরিনের সাথে কথা হলে তিনি জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় হয় প্রবাসী প্রেমিক রনির সাথে।তারপর গভীর প্রমে জড়িয়ে পরেন দুজনেই।গেলো ২০১৮ সনে রনি দেশে এলে দুজনে বিভিন্ন যায়গায় ঘুরাফেরাসহ স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ১৮ অক্টোবর নারায়নগঞ্জে আইরিনের বড় ভগ্নিপতির বাড়ীতে রাত্রিযাপন করেন।এরপরই রনি আবার সিঙ্গাপুর চলে যায়।

আজ বিকাল ৫ টার পর চেয়ারম্যান জুয়েল স্থানীয় কয়েকজনকে নিয়ে আইরিনকে সুরঙ্গল গ্রামে রনি’র বাড়ীতে পৌঁছে দেয়।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আইরিনকে বাড়ীতে ঢুকতে দেয়নি রনি’র পরিবারের লোকজন।আইরিন’কে মারধর করে বিদায় করে দেয়া হয়।মোবাইল ফোনে আইরিন জানান, আমি রনি’র বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন আইনে মামলা করবো।

প্রসঙ্গত দশম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ুয়া আইরিন কিশোরগঞ্জ জেলা সদরে গাইটালে নিজের আরেক বিবাহিত বোনের বাড়ীতে থেকে শহরের বড় বাজার এলাকায় একটি বিউটি পার্লারে কাজ করেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*