Main Menu

শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলাই অভিভাবক ও অধ্যাপকদের নৈতিক দায়িত্ব- ইউএনও

“ডুলাহাজারা কলেজে অভিভাবক সমাবেশ”

জিয়াউল হক জিয়া,চকরিয়াঃ

হেলায় নয়,খেলায় নয়,শিক্ষার্থীদেরকে ভালবাসা ও শাসন দিয়ে ভবিষ্যৎ কর্ণধার হিসেবে গড়ে তুলাই অভিভাবক এবং অধ্যাপকদের নৈতিক দায়িত্ব বললেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার নুরুদ্দিন মোঃ শিবলী নোমান।তিনি আরো বলেন,শিক্ষা বান্ধব সরকার,শিক্ষাখাতকে স্পেশাল দৃষ্টি ভঙ্গিতে দেখছেন।কারণ স্বাধীনতার মহান স্হপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শতবর্ষ জন্মবার্ষিকী ক্ষণগণনার বর্ষ হিসেবে,বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে শিক্ষাখাতকে প্রাণবন্ত দৃষ্টিতে দেখেন।বিধায় শিক্ষার্থীদেরকে নিয়মিত পড়ালেখা যথারীতি আদায়ের প্রতি দৃষ্টি রাখার আহবান জানান।এছাড়া অনিয়মিত শিক্ষার্থীরা নির্বাচনী পরীক্ষায় খারাপ করলে ফাইনালে সুযোগ না দেওয়ার অনুরোধ করেন।এরপর শিক্ষার্থীদের প্রতি মায়া মমতা,ভালবাসা ও শাসন দু’ টোর অন্তরায় সুশিক্ষায় শিক্ষিত করারও আহবান জানান এবং কলেজের সুযোগ্য সভাপতি,অধ্যক্ষ ও কর্মরত সকল অধ্যাপক,অধ্যাপিকার প্রশংসান করেন, অনুষ্ঠানের প্রধান মেহমান চকরিয়ার ইউএনও নুরুদ্দিন মোঃশিবলী নোমান।
গত ১৮ জানুয়ারী সকাল ১১ টা সময় ডুলাহাজারা কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিতব্য অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।
উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন,কলেজের কর্মরত অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী।বিশেষ অতিথি ছিলেন,চকরিয়া উপজেলার পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও অত্র কলেজের গর্ভণিং বডি সভাপতি রেজাউল করিম ও ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল আমিন।অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন,অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম ও অধ্যাপক পরীক্ষিত বড়ুয়া।
সমাপনী বক্তব্যে অধ্যক্ষ বলেন,আমার কলেজের অধ্যায়নরত অধ্যাপক,অধ্যাপিকারা পাঠদানে খুবই আন্তরিক।তবুও কিছু অনিয়মিত শিক্ষার্থীর কারণে কলেজের র্দূনাম হয়।আমি অভিভাবকবৃন্দের উদ্দ্যশে বলবো আপনারাও আপনারদের ছেলে- মেয়েদের প্রতি ভালবাসা ও শাসন চোখে দৃষ্টি রাখলে আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীদের জীবন প্রস্ফুটিত হবে।এছাড়া কলেজে প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক হুমায়ূন কবির হেলালীর অকাল মৃত্যূতে কলেজ পক্ষ থেকে শোকাত পরিবারে প্রতি গভীর সমবেদনা ও কলেজে ৩ দিনের শোক ঘোষনা করেন তিনি।
উক্ত অনুষ্ঠানে অন্যন্যাদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন, অত্র কলেজে কর্মরত সকল অধ্যাপক ও অধ্যাপিকা, শিক্ষার্থী, অভিভাবকবৃন্দ,গর্ভণিং বডিং সদস্য,রাজনৈতিক নেতা ও গণমাধ্যম কর্মী।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*