Main Menu

লামায় ১১ টি ঘরবাড়ী ডাকাতি ও লুট:আহত-১১

বিশেষ প্রতিনিধিঃ

পার্বত্য লামা উপজেলার ফাসিঁয়াখালী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের উলামিয়া পাড়ার, কাইক্যাঝিরি ও ঠান্ডারঝিরি গ্রামে রাতে আধারে মুখোশ পরিহিত স্বশস্ত্রধারী একদল ডাকাত গোষ্ঠি ১০/১১ টি ঘরবাড়ীতে গণ- ডাকাতি এবং লুটপাত করেছে।এময় ডাকাতদের কে বাধাঁ দিয়ে গিয়ে গুরুত্বর আহত- ১১ জন লোক।গত ১ ফেব্রুয়ারী রাত প্রায় ১ টার সময় এ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে।
জানা যায়,আহত জসিম উদ্দিন,
উলামিয়া পাড়ার কাইক্যাঝিরির এলাকার লাল মিয়ার পুত্র।ঠান্ডারঝিরি এলাকার হুমায়রা ও আদর সহ আরো ৮ জন লোক।

ঘটনা সম্পর্কে আহত জসিম উদ্দীন বলেন,১ ফেব্রুয়ারী রাত প্রায় ১ টায় সময় ১০/১২ জনের একদল ডাকাত আমার ঘরের দরজা ভেঙ্গে ভিতরে ডুকে পরিবারে সকলকে মারধর করে।পরে ৩টি মোবাইল, ১ ভরি স্বর্ণ ও নগদ টাকা সহ প্রায় ১ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। এভাবে এই ডাকাতরা আশ-পাশের গ্রামেও আরো ১০টি ঘরবাড়ী ডাকাতি ও লুটপাট করেছে।এসময় মসজিদ ফান্ডের জমা ৪০ হাজার টাকা, মোবাইল ও স্বর্ণসহ প্রায় ২/৩ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে বলে দাবী করেন। ডাকাতের উপযুপুরি আঘাতে ১১জনের মত লোক রক্তাত্ত হয়েছে।পরে খবর পেয়ে আমাদেরকে এলাকার লোকজন উদ্ধার করে চকরিয়া হাসপাতালে পাঠায়িছেন।

পরে খবর পেয়ে লামা থানার ওসি আপ্পেলা নাহা রাজু, তদন্ত ওসি আমিনুল হক ও এসআই আরিফুর রহমান সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং হাসপাতালে আমাদেরকে দেখতে আসছিলেন বলে জানান।বিধায় আমি প্রশাসনের সহযোগিতার্থে থানায় মামলা দায়ের করেছি।

ওয়ার্ড মেম্বার আপ্রোসিং স্বদেশ প্রতিদিনকে বলেন,আমার এলাকায় ডাকাতি ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে।ডাকাত কারা সনাক্ত করা চেষ্টা চলছে।থানায় এবিষয়ে অভিযোগ হয়েছে।
এবিষয়ে লামা থানার অফিসার ইনর্চাজ অপ্পেলা নাহা রাজু বলেন,উনি বান্দরবানে মিটিং আছেন।এবিষয়ে থানার পুলিশ কাজ করছেন জানান।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*