Main Menu

মহেশখালী মাতারবাড়ি কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব

“প্রকল্পে ২৭ ভাগ কাজের অগ্রগতি”

জিয়াউল হক জিয়া,চকরিয়াঃ

মাতারবাড়ি ১২শ মেঘাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকল্প কাজ জানুয়ারী ২০২০ সাল পর্যন্ত শতকরা ২৭ ভাগ অগ্রগতি হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে ২৪ ভাগ কাজ সম্পাদনের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্পের কারনে এ প্রকল্পের কাজ দ্রুত সম্পাদিত হচ্ছে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম গত ৫ ফেব্রুয়ারী কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ি ১২শ মেঘাওয়াট কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শনে যাওয়ায় দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলী এ তথ্য জানান।এছাড়াও চট্রগ্রাম পিআইডি পেইজ তথ্য বিবরণী নাম্বার-২৮৬/চ বলে প্রকাশ করেছেন।

সচিব পরিদর্শনের সময় প্রকল্প কাজের খোঁজ-খবর নেন। দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রকৌশলীদের সাথে কথা বলেন। কাজের গুণগতমান বজায় রেখে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রকল্প কাজ শেষ নির্দেশ দেন।

পরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ভিশন-২০৪১ পূরণের লক্ষ্যে সরকার সারাদেশে বিভিন্ন মেঘা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এ সময় তিনি মহেশখালী প্রকল্প, চট্টগ্রামের কর্ণফুলী টানেল, মিরসরাই ইকোনোমিক জোনসহ রেলওয়ের মেঘা প্রকল্পের কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, মহেশখালী অঞ্চলে সমুদ্রের গভীরতা ১৮ মিটারের বেশি। তাই এ অঞ্চলে গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ করা হচ্ছে। ফলে বড় জাহাজ বা মাদার ভেসেলগুলো অনায়াসে এ বন্দরে মালামাল খালাস করতে পারবে। এতে করে সংশ্লিষ্ট সকলের সময় ও আমদানী-রপ্তানী খরচ কমে আসবে। পাশাপাশি চট্টগ্রাম বন্দরের ওপর চাপও কমবে। মহেশখালী অঞ্চলে একটি কম্পোজিট ডেভেলপমেন্ট সেন্টার করা হচ্ছে বলে এ সময় তিনি উল্লেখ করেন।

পরিদর্শনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, তথ্যসচিব কামরুন নাহার, বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ, কোস্টগার্ডের মহাপরিচালক রিয়ার এডমিরাল এম. আশরাফুল হক, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনসহ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ এবং প্রকল্প সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*