Main Menu

পাবনায় কলেজ ছাত্র হত্যার রহস্য উদঘাটন ; গ্রেপ্তার- ২

পাবনা প্রতিনিধিঃ পাবনা সরকারি এডওয়ার্ড কলেজের গণিত বিভাগের ছাত্র রাজু আহম্মেদ (২২) হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

এর সাথে হত্যায় জড়িত দুই আসামীকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শনিবার মধ্যরাত ও রোববার ভোরে পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

মুলত মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে রাজুকে শ্বাসরোধে হত্যা করে বিলের পানিতে ফেলে দিয়েছিল অপহরণকারীরা। গ্রেপ্তারকৃত দুই আসামী হলো সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার দত্ত খারুয়া গ্রামের সিরাজুল ইসলাম (৩৫) ও একই গ্রামের শামসুল প্রামানিক (৩৩)।

নিহত রাজু পাবনা জেলার সাঁথিয়া উপজেলার কল্যাণপুর গ্রামের লোকমান প্রামানিকের ছেলে। তিনি পাবনা শহরের রাধানগরে কুবাদ ছাত্রাবাসে থেকে এডওয়ার্ড কলেজে লেখাপড়া করতেন।

পিবিআই পাবনার প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তরিকুল ইসলাম আজ রোববার দুপুরে জানান, গত ১৬ সেপ্টেম্বর পাবনা শহরের রাধানগর এলাকার একটি ছাত্রাবাস থেকে কলেজ ছাত্র রাজু আহমেদকে কৌশলে ডেকে নিয়ে যায় ‘আংকেল’ নামে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি।

পরদিন ১৭ সেপ্টেম্বর মোবাইল ফোনে রাজু আহমেদের পরিবারের কাছে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অপহরণকারীরা। এ ঘটনায় পাবনা সদর থানায় ২০ সেপ্টেম্বর মামলা দায়ের করে রাজুর পরিবার।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে মামলাটির তদন্ত শুরু করে পিবিআই পাবনা। পরে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) মধ্যরাতে ভাঙ্গুড়া রেলস্টেশন এলাকা থেকে জড়িত প্রধান আসামী সিরাজুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে পিবিআই সদস্যরা।

পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী অপর সহযোগী শামসুল প্রামানিককে আজ রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) ভোরে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারের পর দুই অভিযুক্ত প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে কলেজ ছাত্র রাজু আহমেদ হত্যায় নিজেদের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।

তাদের ভাষ্যমতে, কিছু পাওনা টাকা আদায় করতে ১৬ সেপ্টেম্বর সকালে পাবনা শহরের কুবাদ ছাত্রাবাস থেকে রাজু আহম্মেদকে ডেকে নিয়ে যায় সিরাজুল ইসলাম।

প্রথমে উল্লাপড়া রেলস্টেশনে গিয়ে সন্ধ্যা পর্যন্ত অবস্থান করে রাজু ও সিরাজুল। সেখান থেকে নিজের বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে রাজুকে নিয়ে ভাঙ্গুড়ার দিলপাশার স্টেশনে যায় সিরাজুল।

সেখানে সিরাজুলের সহযোগী নৌকার মাঝি শামসুল প্রামানিককে মোবাইলে ডেকে নিয়ে নৌকায় উঠে রওনা হয় তারা। পথিমধ্যে নৌকার বাঁশের মাচালের ওপর রাজু ঘুমিয়ে পড়লে তাকে রশি দিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে বিলের পানিতে ফেলে দেয় সিরাজুল ও শামসুল।






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*