Main Menu

চকরিয়ায় নির্বাচনী পরিবেশকে অশান্ত করছে সরকার দলীয় প্রার্থীর সমর্থকরা- চেয়ারম্যান প্রার্থী সাহেদ

বিবিসিএকাত্তর, চকরিয়া:
আগামী ২৫ জুলাই চকরিয়া উপজেলার ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই শান্ত পরিবেশকে অশান্ত করে তুলছে অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীর কর্মী সমর্থকরা।
সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মাঈন উদ্দিন হাসান শাহেদ (আনারস) অভিযোগ করে বলেছেন, তার দু’ কর্মীকে মারধর করেছে গিয়াস উদ্দিন চৌধুরীর কর্মী সমর্থকরা। বিভিন্ন স্থানে তার লাগানো পোষ্টারও ছিড়ে ফেলা হচ্ছে। এ ব্যাপারে তিনি লিখিত ভাবে নির্বাচনের দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের বরাবরে অভিযোগ করেছেন। কিন্তু প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনো কোন কার্যকর ব্যবস্থা না নেয়ায় প্রতিনিয়ত আচরণ বিধি লঙ্গন করছে গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী ও তার কর্মী সমর্থকরা। তিনি এ নির্বাচনকে একটি গ্রহণ যোগ্য নির্বাচন হিসেবে উপহার দিতে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
ওই ইউনিয়নে প্রায় ১৫ হাজার পুরুষ ও নারী ভোটার রয়েছে। ৯টি কেন্দ্রে সুষ্ট নির্বাচন হলে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারলে যিনি নির্বাচিত হোন না কেন তাকে বরণ করে নিবেন তিনি। চেয়ারম্যান প্রার্থী সাংবাদিক শাহেদ আরো অভিযোগ করেন, ২০১১ সালেও তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রাথী হয়েছিলেন। তার সুনিশ্চিত বিজয় ওই সময় যে ভাবে ছিনিয়ে নেয়া হয়েছিল এবারও তার পূর্বাবাস দেখা যাচ্ছে।
তিনি বলেন, প্রশাসন চাইলে বিগত উপজেলা পরিষদের নির্বাচনের ন্যায় একটি সুন্দর নির্বাচন উপহার দিতে পারবেন। ভোটরারা ও চায় একটি গ্রহণ যোগ্য নির্বাচন। বর্তমানে এলাকায় ভোটারদের মনে শংকা বিরাজ করছে ২৫ জুলাই আদৌ কি সুষ্ট নির্বাচন হবে ? নাকি বহিরাগত দলীয় কর্মী সমর্থকরা এসে এখানে একটি অগ্রহণ যোগ্য নির্বাচন করার প্রচেষ্টা চালাবে। সব কিছু নির্ভর করছে প্রশাসনের সদিচ্ছার উপর।
শুক্রবার বিকালে চকরিয়া পৌর শহরের অভিজাত খাবার হোটেল ধাঁনসিড়িতে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে চেয়ারম্যান প্রার্থী মাঈন উদ্দিন হাসান শাহেদ এ অভিমত ব্যক্ত করেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তার ইউনিয়নের ৯টি কেন্দ্রকে ঝুকিপূর্ণ বলে দাবী করেন।





Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*