Main Menu

আমি ছাত্রলীগের কর্মী হতে পেরে গর্ববোধ করছি – আব্দুল্লাহ আল আরমান        

বিবিসি একাত্তর ডেস্ক   

“আমার বলতে গর্ব হয়, আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সংগঠনের একজন কর্মী”
ছাত্রলীগ কর্মী বা নেতা হওয়া এতই সহজ
না ভাইয়া! উপরোক্ত কথা গুলো  লিখেছেন চকরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের নেতা আব্দুল্লাহ আলো আরমান।   তিনি আরও বলেন,
শীতের ভোরে আরামের ঘুম বাদ দিয়ে,
হরতাল
অবরোধে রাস্তা পাহারা দিতে হয়.
বিকালের হিমেল হাওয়ায় প্রেমিকার
মিষ্টি ডাক
উপেক্ষা করে সংগঠন গতিশীলের
কার্যক্রম
চালাতে আনন্দ বাদ দিতে হয়.
সন্ধ্যায় পার্কে বা বন্ধুদের গানের আড্ডা
ফেলে প্রিয় নেতার সাথে একবার
সাক্ষ্যাতের
আশায় ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকতে হয়।
মুভি নাইটস বাদ দিয়ে ব্যানার ফেস্টুন
লাগাতে হয়।
বার্গার পিজ্জা বাদ দিয়ে ভাই ব্রাদারের
সাথে এক কাপ টংয়ের দোকানের চায়ে আনন্দ খুজে নিতে হয়।
তীব্র গরমে ঠান্ডা ঘর ফেলে রাজপথে
মিছিলকে ভালোবাসতে হয়।
পকেটের কথা নাইবা বলি স্যান্ডেল বা
জুতা দেখলেই বুঝবেন।
এমন অনেক ছাত্রলীগ কর্মী বা নেতা
আছেন, যারা মায়ের আদর,বাবার স্নেহ,ভাই
বোনের ভালবাসা!
ত্যাগ করে প্রানের সংগঠনকে
শক্তিশালী করতে
ছেড়ে এসেছেন প্রিয়জন ও পরিবার।
যৌবনে একজন ছাত্রের এর বেশি
সেক্রিফাইস করার সামর্থ থাকে না।
পরিবারের মায়া সবাই ত্যাগ করতে পারে না। সবাই পরিবার এর ভালোবাসা ত্যাগ করে সংগঠন নিয়ে পড়ে থাকতে পারে না।
যারা পারে তারাই সাহসী !!
এবং এই সাহসী সন্তানেরাই ছাত্রলীগ করে ।
এটাই একজন
ছাত্রলীগ কর্মীর
দলের প্রতি ভালোবাসা, সম্মান,শ্রদ্ধা ।
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু
জয়তু শেখ হাসিনা
জয় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ । 






Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*